স্পোর্টস

বিপদে পড়লে সবার আগে মাশরাফি ভাইকেই ফোন করব : তামিম

এখনই সময় :

জাতীয় ওয়ানডে দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা এবং বর্তমান অধিনায়ক তামিম ইকবালের সম্পর্ক খুবই ঘনিষ্ট। তামিম এর আগে বারবার মাশরাফিকে তার ‘মেন্টর’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। অধিনায়ক মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচে তামিমই কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন প্রিয় অধিনায়ককে। মাশরাফির নেতৃত্বে ওয়ানডে ক্রিকেটে নতুন উচ্চতায় উঠেছিল বাংলাদেশ। এবার নতুন দায়িত্ব পেয়ে মাশরাফির দেখানো পথেই চলবেন তামিম। যখনই বিপদ হবে, শরণ নেবেন মাশরাফির।

আজ শনিবার সংবাদ সম্মেলনে তামিম বলেন, ‘একদিক থেকে আমি খুব ভাগ্যবান, ওনার (মাশরাফি) সঙ্গে আমার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। কাছ থেকে অনেক কিছু দেখেছি। একসঙ্গে অনেক ম্যাচ খেলেছি। তার চিন্তা, ধরণ এসব একটু হলেও জানি। আমি চেষ্টা করব যতটা সম্ভব তার কাছ থেকে নেওয়ার। তার মতো নেতৃত্ব দেওয়া খুব কঠিন। তবে আমি যদি কখনও বিপদে পড়ি, প্রথমেই তাকে ফোন করব। তার কাছ থেকে পরামর্শ নেওয়ার চেষ্টা করব।’

মাঠের ভেতরে টেকনিক্যাল ও ট্যাকটিক্যাল সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে বারবার দারুণ ক্ষুরধার ক্রিকেট মস্তিষ্কের প্রমাণ দিয়েছেন মাশরাফি। তামিমের কাছে এটি অবশ্য আপেক্ষিক বিষয়, ‘আমার যদি ১০টি ভালো গুণ থাকে, কিন্তু দল ভালো না করে, ওই ১০ ভালো গুণ কখনও সামনে আসবে না। নেতিবাচকগুলোই সামনে আসবে। মাশরাফি ভাইয়ের ২০টি ভালো গুণ ছিল। সবকিছু সামনে কেন এসেছে? কারণ তার দল ভালো করেছে। নিজেও ভালো করেছেন। যখন দল ভালো করে, অধিনায়ক নিজে ভালো করেন, তখন তার সব ভালো গুণ সামনে চলে আসে।’

তবে মাশরাফি যে মানদণ্ড বেঁধে দিয়েছেন, সেটা ছোঁয়া কঠিন হবে বলে জানান তামিম। তিনি বলেন, ‘তাকে স্পর্শ করা হবে খুব কঠিন। এখনই যদি আমার কাছে আশা করেন যে ওই লেভেলে চলে যেতে হবে, তাহলে সেটি আমার প্রতি আনফেয়ার হবে। আমি চেষ্টা করব। বলছি না যে আমি পারব না বা এই দল পারবে না। তবে সময় লাগবে। এটি এমন ব্যাপার যে রাতারাতি বদলানো যায় না। পৃথিবীর সব জায়গায় দেখতে পারেন। আশা করব, যত কম সময় আমার লাগবে, তত ভালো হবে আমার জন্য, দলের জন্যও।’

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close