স্বাস্থ্য

যেসব ব্যক্তির মাস্ক পরা জরুরি

এখনই সময় :

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের শেষ নেই। চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্বের ১০৩ দেশে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে মারা গেছে অন্তত সাড়ে তিন হাজার।

চিকিৎসকদের মতে, করোনা নিয়ে আতঙ্কিত ও ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। ১০০ জনের মধ্যে মোটে দুজনের এই রোগে মৃত্যু হতে পারে। বাকি ৯৮ জনই কিন্তু শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা দিয়ে এই অসুখ থেকে সুস্থ হতে পারবেন।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু)। হুর মতে, করোনা প্রতিরোধের সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে– ভালোভাবে হাত ধোয়া ও মাস্ক ব্যবহার করা। বাইরে বের হওয়ার সময় মাস্ক ব্যবহার করলে যে কোনো ফ্লু ভাইরাস থেকে নিরাপদে থাকা যায়। আর কিছু ব্যক্তি রয়েছে যাদের অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করা জরুরি।

যেসব ব্যক্তির অবশ্যই মাস্ক পরা উচিত

১. আপনি যদি একজন মেডিকেল কর্মী হন।

২. আপনি যদি COVID-19 এ আক্রান্ত হন।

৩. যদি সংক্রমিত রোগীদের সংস্পর্শে থাকেন।

৪. যদি ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের অঞ্চলে বসবাস করেন।

৫. কোনো সংক্রমিত ব্যক্তির যত্ন নিলে মাস্ক পরতে হবে।

৬. শরীরে ফ্লুর মতো কোনো লক্ষণ দেখা দিলে।

কখন পরবেন

১. করোনায় আক্রান্ত সন্দেহভাজন কোনো রোগীর যত্ন নিলে।

২. সর্দি-কাশি হলে মাস্ক পরতে হবে।

৩. মাস্ক খোলার সময় সংক্রমিত হাত নাকে ও মুখে স্পর্শ হলে আপনার শরীরে ভাইরাস সংক্রমণ হতে পারে। তাই সময় হাত ধুয়ে নিন।

সাবধানতা

১. মাস্ক পরার আগে অ্যালকোহলভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান ও পানি দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে নিন।

২. মাস্ক দিয়ে আপনার মুখ ও নাকটি ঢেকে রাখুন।

৩. মাস্ক পরার পর হাত দিয়ে তা স্পর্শ করবেন না। যদি স্পর্শ করেন তা হলে সঙ্গে সঙ্গে হাত পরিষ্কার করুন।

৪. একবার ব্যবহার করা মাস্ক পুনরায় ব্যবহার করবেন না।

যেভাবে মাস্ক অপসারণ করবেন

১. মাস্ককে কখনই বাইরে থেকে হাত দিয়ে স্পর্শ করবেন না।

২. পেছন থেকে মাস্কটি খুলুন এবং অবিলম্বে এটি ঢাকনাসহ ডাস্টবিনে ফেলে দিন।

৩. অ্যালকোহলভিত্তিক স্যানিটাইজার বা সাবান পানি দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close