স্পোর্টস

ইতিহাসের সাক্ষী হলো যুব টাইগাররা

এখনই সময়:

মাহমুদুল হাসান জয়ের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে নিউজিল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়ে প্রথম বারের মতো যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলো বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২১২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে শুরুতে দুই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। কিন্তু জয়-হৃদয় আর শাহাদাত হোসেনের ব্যাটিংয়ে নৈপুণ্যে কোন বিশ্বকাপের আসরে ফাইনালের স্বাদ পেলো বাংলাদেশ। ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান মাহমুদুল হাসান জয়।

প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপের আসরে ইতিহাস গড়লও বাংলাদেশ। এই ইতিহাস বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষকে নিয়ে গেলো এক সুউচ্চ পাহাড়ের চূড়ায়। যা সারাজীবন সাক্ষী হয়ে থাকবে বিশ্ববাসী। এবারের যুব বিশ্বকাপের আসরে দেশকে স্বপ্ন দেখিয়ে দুর্দান্ত শুরু করেছিল আকবর বাহিনী। সেই স্বপ্ন যুব টাইগারদের আকাশ ছুঁতে সহযোগিতা করলো। দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রমে নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২১২ রানের লক্ষ্যকে মামুলি বানিয়ে ৬ উইকেটে জয় তুলে নিলো বাংলাদেশ। ৩২ রানে দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ দলকে ৬৮ রানের জুটি গড়ে মূলত জয়ের ভিত গড়েন তৌহিদ হৃদয় ও মাহমুদুল হাসান জয়।

হৃদয় ৪০ রানে রান-আউটের শিকার হলেও মাহমুদুল হাসান জয় ছিলেন দুর্বার।শাহাদাত হোসেনকে সাথে নিয়ে ধীর গতিতে এগিয়ে যেতে থাকেন জয়ের দিকে। তবে জয় থেকে মাত্র ১১ রান দুরে থাকতে তাশকফের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। আউট হওয়ার আগে জয়ের ব্যাট থেকে আসে ১২৭ বলে ১০০ রানের এক দুর্দান্ত ইনিংস। ১৩টি চার ছিলো জয়ের এই সেঞ্চুরিতে।

এরপর শামীম হোসেনকে সাথে নিয়ে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন চট্টগ্রামের ছেলে শাহাদাত হোসেন। চারটি চারে ৫১ বলে শাহাদত করেন ৪০ রান। নিউজিল্যান্ডের হয়ে বল হাতে ক্লার্ক, হ্যানকফ, অশোক ও তাশকফ নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ধুকতে থাকে নিউজিল্যান্ড। বাংলাদেশের বোলারদের তোপের মুখে ২৬ ওভারে মাত্র ৭৪ রান নিতেই তাদের হারাতে হয় চারজন ব্যাটসম্যানকে। দলের হয়ে হুইলার গ্রীনাল করেন সর্বোচ্চ ৭৫ রান। যদিও ৫৫ রানের মাথায় আকাশে ভাসানো ক্যাচ তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন মুরাদ। এছাড়া নিকোলাস লিডস্টোন করেন ৪৪ রান।

সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টাইগার বোলারদের মধ্যে শরিফুল ইসলাম ছিলেন উজ্জল। তিনি ১০ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে শিকার করেন ৩ উইকেট। তবে নিউজিল্যান্ড শিবিরের প্রথম আঘাত হানেন শামীম হোসেন। ৬ ওভারে ৩১ রান দিয়ে শামীমের শিকার হয় দুই উইকেট।আজকের ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে রান কৃপণতায় সবার থেকে এগিয়ে ছিলেন হাসান মুরাদ।১০ ওভারে মাত্র ৩৪ রান দিয়ে হাসান মুরাদ নেন দুটি উইকেট।

আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি একই মাঠে শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে ভারতকে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশের যুবারা।

 

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close