স্পোর্টস

দলকে বিশ্বকাপ ফাইনালে তোলার নায়ক মাহমুদুল

এখনই সময়:

আঁটসাট বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ডকে কম রানে আটকে দিয়ে অর্ধেক কাজ আগেই সেরে ফেলেছিল বোলাররা। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে জোড়া ধাক্কা। এরপর শুধুই ইনিংস গড়ে গেছেন ব্যাটসম্যানরা। যার নেতৃত্বে ছিলেন মাহমুদুল হাসান জয়। সেমিফাইনালে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বাংলাদেশকে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলে নায়ক বনে গেছেন এই তরুণ।

মাহমুদুল যখন উইকেটে আসেন, ততক্ষণে মাত্র ৩২ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ। কঠিন সময়ে ব্যাটিংয়ে নেমে ঠাণ্ডা মাথায় সামলেছেন প্রতিপক্ষ বোলারদের। ১২৫ বলে তিন অংকে পৌঁছে যান মাহমুদুল। চাপের মুখে ব্যাট হাতে নেমে এই অনন্য সেঞ্চুরি করার পরেই বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে যান তিনি। দল তখন জয় থেকে ১১ রান দূরে। মাহমুদুলের ইনিংসে ছিল ১৩টি বাউন্ডারি। শেষে তৌহিদ হৃদয় আর শাহাদত হোসেন দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন।

শেষের দিকে কিউইদের স্পিন কিংবা পেস আক্রমণ- কোনটাই পাত্তা পায়নি জুনিয়র টাইগারদের কাছে। দলের প্রয়োজন বুঝে ব্যাট কার, বাজে শট না খেলা, মাথা ঠাণ্ডা রেখে স্কোর এগিয়ে নিয়ে যাওয়া- সবকিছুই ছিল মাহমুদুলের ব্যাটিংয়ে। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি ফাইনালে শক্তিশালী ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। যুব ওয়ানডেতে টানা নবম জয় পাওয়া বাংলাদেশের সমর্থকেরা শিরোপার স্বপ্ন দেখতেই পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close