সারাদেশ

ডাস্টবিনে পাওয়া নবজাতক মায়ের কোলে, ধর্ষণের দায়ে ৪ যুবক গ্রেফতার

এখনই সময়:

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার নবজাতক মায়ের কোলে ফিরেছে। গত মঙ্গলবার রাতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নকর্মীরা ওই নবজাতককে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানা পুলিশ ৪ যুবককে আটক করে বৃহস্পতিবার রংপুর আদালতে প্রেরণ করেছে।

আটক যুবকরা হলেন- পীরগঞ্জ উপজেলার জাফরপাড়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে অর্নাস প্রথম বর্ষের ছাত্র আরিফুল ইসলাম (১৯), সরলা-চান্দেরপাড়া গ্রামের মৃত বিমল চন্দ্র সরকারের ছেলে তাপস সরকার (২৮), ধনশালা গ্রামের হিন্দুপাড়ার সুবল চন্দ্র রায়ের ছেলে সঞ্জিত কুমার রায় (২০), ও গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার বড় দাউদপুর গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে রাহেল সরকার (৩২)। এছাড়াও এ ঘটনায় জড়িত পলাতক রওশনপুর গ্রামের রতন ওরফে রুহান পিতা অজ্ঞাত জড়িত ছিলো বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ ও মামলার বর্ণনা মতে- গ্রেফতারকৃতরা স্থানীয় টিভিএস শো-রুমের কর্মচারী ও মেকানিক। গত মঙ্গলবার ৪ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টার দিকে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাস্টবিন থেকে কান্নার শব্দ পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নকর্মীরা ওই নবজাতককে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে বুধবার দুপুরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নবজাতক ও তার মাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়।

জানা যায়, স্কুল পড়–য়া ওই কিশোরীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে পরিচয়। পরে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমের সস্পর্ক গড়ে উঠে রাহেল সরকারের। গত বছরের ২৯ জুন পীরগঞ্জ থানা সদরের টিভিএস মোটরসাইকেলের সার্ভিসিং সেন্টারের ভেতরে রাহেলসহ আরও ৩ যুবক ওই কিশোরীকে গণধর্ষণ করে। অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে কিশোরীটি। গত মঙ্গলবার রাতে প্রসব বেদনা শুরু হলে ভ্যানযোগে পেটের ব্যথার কথা বলে জরুরি বিভাগে ভর্তি হতে এলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ রোগীর ওয়ারিশের পরিচয় জানতে চাওয়ার সময় ভ্যান চালক চলে যায়। এসময় আইরিন প্রসব বেদনায় ছটপট করতে-করতে কাউকে কিছু না বলে দোতলায় উঠার সময় বাচ্চা প্রসব করার পর সন্তানটিকে ডাস্টবিনে ফেলে পালিয়ে যায় ।

পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরেস চন্দ্র জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত আরিফুলকে প্রথমে গ্রেফতার করা হয়। তথ্য বের করতে গিয়ে জড়িত অন্য আসামীদের গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার আদালতে প্রেরণ করা হয়।

 

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close