বিনোদন

হ্যাশট্যাগ ‘বাফটাস সো হোয়াইট’

এখনই সময়:

ব্রিটিশ একাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন আর্টস (বাফটা) অ্যাওয়ার্ডস যেন শুধুই শেতাঙ্গদের জন্য! এ নিয়ে টানা ৭ বছর মনোনীতদের মধ্যে জাতিগত বৈচিত্র্য ও লিঙ্গ সমতার অভাব থাকায় কঠোর সমালোচিত হচ্ছে বাফটা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে হ্যাশট্যাগ ‘বাফটাস সো হোয়াইট’।

লন্ডনের রয়েল আলবার্ট মিলনায়তনে বাংলাদেশ সময় ৩ ফেব্রুয়ারি সকালে জমকালো আয়োজনে এবারের বাফটা বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। আয়োজকরা অনুষ্ঠানের সফলতা শতভাগ দাবি করলেও তাদের অনেকাংশ সমালোচিত। বিশেষ করে এবার পরিচালক বিভাগে মনোনীতরা সবাই পুরুষ। অভিনয়শিল্পী বিভাগগুলোতে মনোনয়ন পান ২০ জন শ্বেতাঙ্গ। এমনকি বাফটার প্রধান আমান্ডা বেরিও বিষয়টি নিয়ে হতাশ!

লালগালিচায় এসেছিলেন বাফটার সভাপতি প্রিন্স উইলিয়াম ও তার স্ত্রী কেট মিডেলটন। তারাও কৃষ্ণাঙ্গদের পক্ষে মন্তব্য করেছেন। এমনকি সেরা অভিনেতার পুরস্কার পাওয়া ওয়াকিন ফিনিক্সের বক্তব্যেও বিষয়টি উঠে এসেছে। সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন রেনে জেলওয়েগার। তিনি তার বক্তব্যে এ বিষয়ে কিছু বলেননি।

এদিকে অভিনেত্রী ও পার্শ্ব-অভিনেত্রী উভয় বিভাগে মনোনীত স্কারলেট জোহানসনের মন্তব্য, ‘পরিচালক বিভাগে শুধুই পুরুষদের মনোনয়ন পাওয়া দেখিয়ে দিয়েছে নারীদের আটকে রাখার প্রবণতা। নারী পরিচালকরা ভালো কাজ করলেও তাদের উপেক্ষা করা হচ্ছে। আমি হতাশ।’

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে নির্মিত ‘নাইনটিন সেভেনটিন’ এবারের বাফটায় রাজত্ব করেছে। সেরা চলচ্চিত্র, সেরা পরিচালনাসহ সর্বাধিক ৭টি পুরস্কার জিতলো চলচ্চিত্রটি। স্যাম মেন্ডেসের মাধ্যমে ১১ বছর পর কোনো ব্রিটিশ নির্মাতা বাফটায় সেরা পরিচালক হলেন। নাইনটিন সেভেনটিন দেখলে মনে হবে পুরোটাই একটি শটে ধারণ করা!

গত ৫ বছর ধরে বাফটার সেরা চলচ্চিত্র অস্কারে শেষ হাসি হাসেনি। বাফটা বিজয়ী ও মনোনীতদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেন অ্যাকাডেমির ৬ হাজার ৭০০ জন সদস্য, যারা হলিউডের প্রফেশনালস ও বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সৃজনশীল ব্যক্তি।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close