সারাদেশ

বিদ্যালয়ের নলকূপ থেকে বের হচ্ছে গ্যাস, বালু-পানি

এখনই সময়:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবা উপজেলার বায়েক ইউনিয়নের শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে নতুনভাবে বসানো একটি গভীর নলকূপ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস, বালু ও পানি। বুধবার সকাল থেকে গ্যাস বের হওয়া বন্ধ করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন স্থানীয়রা। ফলে উপজেলা প্রশাসন ওই স্কুলটির কার্যক্রম অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছেন। ভবন ধসে পড়ার আশংকায় আসবাবপত্র অন্যত্র সড়িয়ে নেওয়া হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বায়েক ইউনিয়নের সালদা গ্যাস ক্ষেত্র থেকে দুই কিলোমিটার দূরে রয়েছে অস্টজংগল এলাকায় শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়। ওই বিদ্যালয়ের মাঠে সরকারিভাবে একটি গভীর নলকূপ বসানো হচ্ছে। ওই নলকূপের বসানোর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এমতাবস্থায় নলকূপের পাইপ দিয়ে গ্যাস বের হচ্ছে। এতে বালু, গ্যাস ও পানির সংমিশ্রণ রয়েছে। কোনভাবে গ্যাস বের হওয়া বন্ধ করা যাচ্ছে না।

খবর পেয়ে কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন ও অফিসার ইনচার্জ কসবা থানা মোহাম্মদ লোকমান হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় গ্যাস দ্রুত গতিতে বের হওয়ায় বিদ্যালয়ের একটি ভবন ঝুঁকির মধ্যে চলে আসে। গ্যাস, বালু আর পানিতে পুরো মাঠ ভরে গেছে। এ সময় ওই ভবন থেকে আসবাবপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বিদ্যালয়ের চারদিকে লাল পতাকা দিয়ে সতর্কতা চিহ্ন দেয়া হয়েছে। বিদ্যালয়ের কার্যক্রম অস্থায়ী ভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের চারপাশে পুলিশ ও গ্রাম পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বায়েক ইউপি চেয়ারম্যান মো. আল মামুন ভূঁইয়া বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে একটি গভীর নলকূপ বসাতে গেলে এটি দিয়ে দ্রুত গতিতে গ্যাস, বালু ও পানি বের হচ্ছে। আস্তে আস্তে গভীর নলকূপের গর্তটি গভীর হয়ে যাচ্ছে। ভবনের নিচ থেকে মাটি সড়ে যাচ্ছে। বিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নলকূপ মেকানিক মো. আব্দুল মোতালিব মোল্লা বলেন, সরকারিভাবে গভীর নলকূপ বসানো প্রায় শেষ পর্যায়ে। এমন সময় হঠাৎ করে ওই নলকূপ দিয়ে গ্যাস দ্রুতগতিতে বের হওয়া শুরু হলে পাইপ বসানো যায়নি। নলকূপটি দিয়ে দ্রুতগতিতে গ্যাস, বালু ও পানি বের হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একটি নতুন গভীর নলকূপ বসানো হয়েছিল। ওই নলকূপের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। কিন্তু বুধবার সকাল থেকে নলকূপের গর্ত থেকে দ্রুত গতিতে গ্যাস বের হচ্ছে। এতে বালু, গ্যাস ও পানি বের হচ্ছে। কোনভাবেই তা বন্ধ করা যাচ্ছে না। বিষয়টি পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপি এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবহিত করা হয়েছে।

তিনি জানান, বিদ্যালয়ের একটি ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ওই ভবনের আসবাবপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। স্কুলের কার্যক্রম অস্থায়ীভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। বিদ্যালয়ের চারপাশে পুলিশ ও গ্রাম পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close