সারাদেশ

নওগাঁ সীমান্তে নিহত দুজনের লাশ ফেরত দিল বিএসএফ

এখনই সময়:

নওগাঁর পোরশা দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকায় বিএসএফের গুলিতে নিহত দুই বাংলাদেশি সনজিৎ কুমার (২৫) ও কামাল (৩২) এর লাশ তিন দিন পরে ফেরত দিয়েছে ভারতের সীমান্ত রক্ষা বাহিনী (বিএসএফ)।

আজ শনিবার দিবাগত রাত ৮টায় উপজেলার সীমান্ত এলাকা নিলমারী বীল ২৩১ (১০) এস পিলার এলাকায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিজিবি কর্তৃপক্ষের কাছে লাশ দুটি হস্তান্তর করেছে বিএসএফ কর্তৃপক্ষ। ভারতের পক্ষে ১৫৯ বিএসএফের ব্যাটালিয়ন কমান্ড্যান্ট জসি হর্ষি বর্ধন আনুষ্ঠানিকভাবে লাশ হস্তান্তর করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে লাশ গ্রহণ করেন ১৬ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল ইসলাম পিএসসি। পরে লাশ দুটি তাদের পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়। এ সময় ১৬ বিজিবি’র নিতপুর ক্যাম্পের কমান্ডার সুবেদার মোহাম্মদ আলী ও হাঁপানিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েক সুবেদার মোকলেসুর রহমান, পোরশা থানা অফিসার ইনচার্জ শাহিনুর রহমান, তদন্ত কর্মকর্তা নিরেন চন্দ্র উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুধবার রাতে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি যুবক ভারতের অভ্যন্তরে গরু নিতে প্রবেশ করেন। তারা গরু নিয়ে বাংলাদেশে ফেরার পথে বৃহস্পতিবার ভোরে পোরশা উপজেলার দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকার ২৩১/১০ (এস) মেইন পিলারের নীলমারী বিল এলাকায় পৌঁছলে ভারতের ক্যাদারিপাড়া ক্যাম্পের বিএসএফ জওয়ানরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে।

এ সময় অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও গুলিতে তিন বাংলাদেশি নিহত হন। নিহতরা হলেন- উপজেলার বিষ্ণপুর বিজলীপাড়ার শুকরার ছেলে রণজিত কুমার (২৫), বিষ্ণপুর দীঘিপাড়া গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে মফিজ উদ্দিন (৩৮) এবং বিষ্ণপুর কাঁটাপুকুরের মৃত জিল্লুর রহমানের ছেলে কামাল হোসেন (৩২)।

এ সময় মফিজ উদ্দিন গুলিবিদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের ২০০ গজ অভ্যন্তরে মারা যায়। পরে খবর পেয়ে তার লাশ উদ্ধার করে তার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেন পোরশা থানা পুলিশ। অপরদিকে রনজিত কুমার ও কামাল হোসেন ভারতের ৮০০ গজ অভ্যন্তরে মারা যায়। ফলে তাদের লাশ বিএসএফ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close