আন্তর্জাতিক

ভাসুরের ধর্ষণের ভয়ে বাড়ি ছেড়েছেন টিকটক গৃহবধূ জ্যাসমিন!

এখনই সময় :সারাদিনই টিকটক ভিডিওতে ব্যস্ত থাকতেন ভারতের চুঁচুড়া ভগবতীডাঙায় এলাকার বাসিন্দা প্রসেনজিৎ মন্ডলের স্ত্রী প্রতিমা মন্ডল, তাদের একটি পাঁচ বছরের মেয়েও রয়েছে। তার প্রোফাইলের নাম ছিল জ্যাসমিন। মাত্র ৯ মাসেই ৪ লাখ ২৮ হাজার ফলোয়ার জ্যাসমিনের। তিনি নিখোঁজ হওয়ার পর চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয় ভারতে। পরে তার খোঁজ পাওয়ার পর একের পর এক ঘটনা খোলাসা হচ্ছে।

এবার ভাসুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে সুর চড়ালেন টিকটকখ্যাত হুগলির এই গৃহবধূ। সম্প্রতি এক ভিডিও বার্তায় তার স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগে সরব হলেন তিনি। তার অভিযোগ, পরিবারের অন্যদের সহায়তায় ভাসুর ধর্ষণ করতে চেয়েছিল, এই ভয়েই বন্ধুর সাথে বাড়ি ছাড়ি। তারা প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে বলেও অভিযোগ গৃহবধূর। অসহায় অবস্থায় ভারতীয় পুলিশের কাছে তিনি সাহায্যের দাবি জানিয়েছেন।

গৃহবধূ আরও অভিযোগ করে, ভাসুর তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মদতে ঘটনা ঘটে বলেই দাবি তার। অত্যাচার থেকে বাঁচতেই শ্বশুরবাড়ি থেকে পালিয়ে দিল্লিতে চলে যান তিনি। অপহরণ নয় নিজের ইচ্ছায় দিল্লিতে যান বলে দাবি জ্যাসমিনের। এর আগে, ভিডিও কলে স্বামীর বাড়ির লোকজনের অত্যাচারে বন্ধুর সাথে ঘর ছেড়ে দিল্লিতে বাড়িতে গিয়ে উঠেছেন বলে তিনি জানান। তবে স্ত্রীর এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে তখন জানান তার স্বামী।

জানা যায়, টিকটক ভিডিও করে দিন দিন বাড়ছিল তার ফলোয়ারের সংখ্যা। বাড়ছিল পরিচিতিও। সেই পরিচিতির জন্যই দিল্লিতে ব়্যাম্প শোয়ে অংশ নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন টিকটকে জাসমিন নামে পরিচিত ওই গৃহবধূ।

গত ৩১ ডিসেম্বর চুঁচুড়ার ভগবতীডাঙার বাসিন্দা ওই গৃহবধূ দিল্লিতে সেই অনুষ্ঠানে অংশ নিতেই রওনা দিয়েছিলেন। এরপরই তার সঙ্গে পরিবারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বহুবার যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে গৃহবধূর স্বামী চুঁচুড়া থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন। স্থানীয়দের অভিযোগ এর আগেও একাধিকবার স্বামী সন্তানকে রেখে ঘর ছেড়েছিলেন ওই গৃহবধূ।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close