বিনোদন

প্রেম করি না এটা বললে ভুল হবে

এখনই সময়  :আব্দুন নূর সজল। দীর্ঘদিন ধরেই ব্যস্ত অভিনয় শিল্পীর কাতারে তাঁর নাম। ব্যস্ততা কমে না। কিন্তু এর ফাঁকে বন্ধু বান্ধব কিংবা শুভাকাঙ্ক্ষীদের সময় কম দেন- এমন অভিযোগ কিন্তু নেই। সুযোগ পেলে আড্ডায় মেতে ওঠেন। রাজধানীর উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরে শুটিংয়ের ফাঁকে সাংবাদিকদের সাথে তেমনই এক আড্ডায় পাওয়া গেল সজলকে।

জানালেন যে নাটকে অভিনয় করছেন তার নাম ‘প্রিয় কবিতা।’ তাঁর বিপরীতে অভিনয় করছেন সালহা খানম নাদিয়া।

আড্ডার বিষয়বস্তু নানামূখী হলেও পাঠকদের জন্য শোবিজের কথা শেয়ার করতে হবে। সজল বললেন, কবি চরিত্রে অভিনয় করছি। জানালেন, এখন সোজাসাপ্টা ও সহজ সমীকরণের গল্পে একদমই কাজ করছেন না।

বললেন, ‘নির্মাতা সরদার রোকন যখন এই গল্পটা নিয়ে এলেন আমি পড়ে মুগ্ধ হলাম। একজন কবি। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই কবি জনপ্রিয়। আবার একটা পায়ে সমস্যা। সমস্যা মানে ক্র্যাচ নিয়ে হাঁটতে হয়। জন্ম থেকে যে এমনটা তা কিন্তু নয়।’ জানালেন, সামাজিক দায়িত্ববোধের জায়গা থেকেই প্রতিবাদ করতে এক মর্মান্তিক ঘটনার শিকার হন তিনি। এরপর ভাঙা পা নিয়ে অন্তর্মুখী হয়ে পড়েন। পাশপাশি লিখতে থাকেন একের পর এক জনপ্রিয় সব কবিতা।

নাটকের গল্পের কথা বলতে গিয়ে সজল নিজের কথাও বলে ফেললেন। বললেন, ‘আমি কবিতা ভীষণ পছন্দ করি। লিখতে আমারও ইচ্ছে করে। কবিতা লিখতে পারি না। নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা নিয়ে আমি ডায়েরিতে প্রতিদিন লিখি।’ জনৈক গণমাধ্যমকর্মী জিজ্ঞেস করলেন সেটা কি জীবনী আকারে প্রকাশ হবে। সজল সেটাকে স্পষ্ট না করে নাটকের গল্পে ঢুকে পড়লেন। বললেন, ‘সেই কবির প্রেমে পড়ে যায় এক মেয়ে। কিন্তু কবি সজলের পায়ের অবস্থা এমন দেখে তাকে প্রত্যাখ্যান করে যায় সেই তরুণী।’

এরপর…? এরপর? সজল হাসলেন এরপর আরো কোনো উত্তর দেননি। কারণ এই উত্তর দিলে নাকি নাটকের টুইস্ট নষ্ট হয়ে যাবে। গল্প নাকি আরো অনেক বাকি রয়েছে।

যাই হোক গল্প না বলুন। নিজের জীবনের গল্প বলুন? উঁহু ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলা যেতে পারে কিন্তু সাংবাদিক হিসেবে সেসব প্রশ্ন জানতে চাইলে উত্তর নেই। তবে প্রেম বিয়ে বিষয় একটি প্রশ্নের উত্তর সজল দিয়ে ফেলেছেন।

পাঠক সে প্রশ্নের নিশ্চই আপনার অজানা- সজল বললেন বিয়ের বিষয়ে শিগগির জানাবেন। আর প্রেম করছেন কি না? ‘মিথ্যা বলবো না আমার প্রেমিকা আছে।’ বলেই একটা ফ্লাইং কিস ছুঁড়ে দিলেন। প্রেমিকার উদ্দেশে নয়, শুভাকাঙ্ক্ষীদের উদ্দেশে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close