সারাদেশ

হাসপাতালের ছাদে আটকা বিড়াল উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস

এখনই সময় :যশোর জেনারেল হাসপাতালের ছাদে আটকা পড়া বিড়াল উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। রবিবার সকালে বিড়ালটি উদ্ধার করা হয়।

শনিবার সকালে নাজমা আহমেদ নামে এক নারী হাসপাতালে রোগী দেখতে যান। সেখান থেকে তার পোষা বিড়ালটি হারিয়ে যায়। রবিবার সকালে দেখতে পান হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের বিপরীত ভবনের তিনতলায় বিড়ালটি একটি এয়ার কন্ডিশন মেশিনের বাইরে আটকে আছে। তখন তিনি খবর দেন ফায়ার সার্ভিসে। ফায়ার সার্ভিস এসে বিড়ালটি উদ্ধার করে।

যশোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘মানুষের কল্যাণ আর সেবাই আমাদের কাজ। আমরা বিড়ালটিকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে তার মালিকের কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছি এটিই আনন্দের বিষয়।’

যশোর শহরের পূর্ববারান্দিপাড়া এলাকার বাসিন্দা নাজমা আহমেদ ও জাকির হোসেন দম্পতি। তারা জানান, শনিবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক আত্মীয়ের খোঁজ নিতে যান। তাদের সঙ্গেই ছিল পোষা বিড়ালটি। তারা যখন হাসপাতালের তৃতীয়তলায় সেই আত্মীয়ের সঙ্গে কথা বলছিলেন, ঠিক সেই মুহূর্তে বিড়ালটি লাফ দিয়ে নিচে নেমে যায়। তখন তারা ঘটনাটি টের পাননি। বাড়ি ফেরার সময় দেখেন বিড়ালটি পাশে নেই। পরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। কিন্তু দীর্ঘ সময় খুঁজে না পেয়ে মনোকষ্টে বাড়ি ফেরেন। এরপর রবিবার সকালে বিড়ালটি খুঁজতে বের হন। তারা দেখতে পান বিড়ালটি হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের বিপরীত ভবনের তিনতলায় একটি এয়ার কন্ডিশন মেশিনের বাইরে আটকে রয়েছে। এরপর যশোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসে গিয়ে কর্মকর্তাদের বিষয়টি বুঝিয়ে বলেন। সব শুনে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা হাসপাতাল চত্বরে পৌঁছে যান। তারা মই লাগিয়ে নামিয়ে এনে নাজমা বেগমের হাতে বিড়ালটি তুলে দেন।

নাজমা আহমেদ জানান, বছর দুই আগে শহরের হাইকোর্ট মোড়ে যাওয়ার পথে নর্দমার মধ্যে একটি বিড়ালছানা পড়ে থাকতে দেখেন। সেখান থেকে তুলে আনেন বিড়ালছানাটি। তারপর থেকে বিড়ালছানাটি তাদের সঙ্গেই থাকে। পরিবারেরই একজন হয়ে রয়েছে। বিড়ালটি সন্তানের মতো।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close