আন্তর্জাতিক

দুই মাসেও বাগে আসেনি অস্ট্রেলিয়ার দাবানল!

এখনই সময় :দুই মাসেও বাগে আনা যায়নি অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের দাবানল। আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে বহু বাড়ি-ঘর আর অবকাঠামো। তাপমাত্রা না কমলে দাবানল কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে না বলে আবারও জানিয়েছে দেশটির আবহাওয়া দপ্তর। বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তনের কুফল হিসেবেই দেখা হচ্ছে এই দাবানলকে।

এদিকে, প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে যে স্বেচ্ছাসেবকরা আগুন নেভাতে কাজ করছে তাদের পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

অসহনীয় কষ্ট আর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের বন্যপ্রাণীরাও। বহু প্রাণী হয়তো এরই মধ্যে পুড়ে মারা গেছে। কিন্তু করার যেন কিছুই নেই। দমকল বাহিনীর কয়েক হাজার সদস্য আপ্রাণ চেষ্টা করেও কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছেন না বনাঞ্চলের এই দাবানল।

এখন পর্যন্ত দাবানলে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৯ জন মানুষ। ধ্বংস হয়ে গেছে প্রায় এক হাজার বাড়িঘর আর বহু অবকাঠামো। দাবানল ক্রমেই ছড়িয়ে পড়তে থাকায় হুমকির মধ্যে রয়েছে আরও অনেক বাড়িঘর।

রবিবারও দেশটির তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপর। এই তীব্র দাবদাহের কারণে প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকায় দাবানলের সৃষ্টি হচ্ছে। এ তাপমাত্রা না কমলে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে কোনো লাভই হবে না বলে আবারও জানিয়েছে দমকল কর্মীরা।

দাবানল শুরুর পর থেকেই তা নেভাতে অস্ট্রেলিয়ার দমকল বাহিনীর পাশাপাশি কাজ করে যাচ্ছেন বহু স্বেচ্ছাসেবক। রবিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এই স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ জানান এবং একই সঙ্গে তাদেরকে অর্থ পুরস্কার দেয়ার ঘোষণাও দেন তিনি।

মরিসন বলেন, দাবানলের কারণে দেশ মারাত্মক সংকটজনক পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে। আগুন নেভানোর কাজে দমকল কর্মী আর স্বেচ্ছাসেবকরা ঝুঁকি নিয়ে যে পরিশ্রম আর আত্মত্যাগ করে যাচ্ছে, তার জন্য পুরো দেশ তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এ অবদানের মূল্য টাকা দিয়ে শোধ করা যায় না। তারপরও সরকার স্বেচ্ছাসেবকদের অবশ্যই পুরস্কৃত করবে।

প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণায় উচ্ছসিত স্বেচ্ছাসেবক ও দমকল কর্মীরা।

তারা বলছেন, বার্ষিক ছুটিটা কেটেছে এখানে কাজ করেই। দেশের এক প্রান্ত যখন এভাবে আগুনে ধ্বংস হতে থাকবে তখন ঘরে বসে আরাম করা আমার পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব হতো না।

এক দমকল কর্মী বলেন, এটা শুধু অর্থ নয়, আমাদের পরিশ্রমের স্বীকৃতি। আমার বয়স ৬৫ বছর। অবসর গ্রহণের পরও এখনও দমকল কর্মী হয়ে কাজ করছি। যারা এই কাজটি করছেন, তাদের বেশিরভাগ মানুষই আমার মতোই নিখাদ আবেগ থেকেই কাজটি করে যাচ্ছেন।

দাবানলের কারণে নিউ সাউথ ওয়েলসে অব্যাহত রয়েছে জরুরি অবস্থা। এখনও বন্ধ রয়েছে স্থানীয় সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close