আন্তর্জাতিক

‘হুতিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সৌদি আরবের বহু সেনা হতাহত’

এখনই সময় :ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সৌদি আরবের বেশ কয়েকজন সেনা হতাহত হয়েছে বলে দাবি করেছে প্রতিবেশী ইয়েমেনের ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীরা।

শুক্রবার হুতি বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারিয়ি এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেছেন। ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনার প্রতিবেদনে এ খবর জানা গেছে।

তিনি জানান, সৌদি আরবের নাজরান প্রদেশের একটি সামরিক ঘাঁটিতে হুতি সেনারা ওই হামলা চালায়। নাজরান প্রদেশের বীর আসকার ক্যাম্পে বাদর পি-ওয়ান ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে আঘাত হানা হয়।

ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে সৌদি আরবের বহু সেনা হতাহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন হুতিদের এই মুখপাত্র।

জেনারেল সারিয়ি জানান, ইয়েমেনের বেসামরিক জনগণের ওপর সৌদি আরবের বিমান হামলার জবাবে নাজরান প্রদেশের ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়।

২০১৫ সাল থেকে হুতিদের বিরুদ্ধে অব্যাহত বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। এতে নারী ও শিশুসহ হাজার হাজার বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন।

যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। দুর্ভিক্ষের কিনারে গিয়ে ঠেকেছে ইয়েমেন।

একটি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে হুতিরা আবদ রাব্বি মানসুর আল-হাদিকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিলে সৌদি নেতৃত্বাধীন উপসাগরীয় জোট ২০১৫ সালে ইয়েমেনে হস্তক্ষেপ করে।

এরপর থেকে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ইয়েমেনি সরকারকে ক্ষমতায় বসাতে তারা একের পর এক বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

ইয়েমেনের ভবিষ্যৎ নিয়ে রাজনৈতিক আলোচনা শুরু করতে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির বিভিন্ন অংশে বোমা হামলা বন্ধে সৌদি আরব সম্মত হয়েছে বলেও খবর প্রচারিত হয়েছে।

কয়েকটি অঞ্চলে বোমা হামলা কমিয়ে আনতে ও বন্দিবিনিময়ে সৌদি আরবের একটি সীমিত প্রস্তাবের কথা নিশ্চিত করেছে পশ্চিমা কূটনৈতিক সূত্র।

পুরোপুরি সামরিক বিজয়ের সম্ভাবনা দেখতে না পেয়ে চলতি বছরের শুরুতে ইয়েমেন থেকে বেশ কিছু সেনা প্রত্যাহার করে নিয়েছে সৌদি জোটের অন্যতম অংশীদার সংযুক্ত আরব আমিরাত।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close