সারাদেশ

কুমিল্লায় নির্মাণাধীন ভবনের ছাদ ধসে শ্রমিক নিহত, আহত ২০

এখনই সময় :কুমিল্লা নগরীর কান্দিরপাড় এলাকায় নির্মাণাধীন রুপায়ণ-দেলোয়ার টাওয়ারের একটি বহুতল ভবনের ছাদ ধসে রেজা নামে নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও ২০ শ্রমিক। গুরুতর আহতদের মধ্যে ১১জনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহতদের নগরীর বিভিন্ন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় টাওয়ারের ৩য় তলার ছাদ ঢালাইকালে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট পুলিশ ও স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার কাজ চালায়। এসময় ভবনটিতে প্রায় অর্ধশতাধিক শ্রমিক কাজ করছিল বলে আহত শ্রমিকরা জানায়। এদিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে হতাহতদের আর্থিক সহায়তা এবং ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর।

জানা গেছে, কুমিল্লা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সরকার থেকে বন্দোবস্ত নেয়া দীপিকা-দীপালি সিনেমা হল ভেঙ্গে সম্প্রতি সেখানে রুপায়ন-দেলোয়ার টাওয়ার নামে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। শুক্রবার নির্মাণাধীন ওই ভবনটির ৩য় তলার ছাদের ঢালাই কাজ চলছিল। সন্ধ্যায় ঢালাই করা ওই ছাদের একাংশ ধসে পড়লে ছাদের উপরে ও নীচে থাকা কমপক্ষে ২০ শ্রমিক আহত হন। এদের মধ্যে রেজা (১৯) নামের এক শ্রমিককে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাড়ি রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলার পীরেরহাট গ্রামে বলে জানা গেছে।

এছাড়া গুরুতর আহতদের মধ্যে নিত্য (৪৫), রাব্বানী (২৫), আবদুল্লাহ (২২) মোকশেদ (২৫), শাফিনুর (১৮), আমির (৪৮), ইমরান (২০), তালু (২৮), শিমুল (২২), রানা (১৮), রুহুল আমিনসহ (২৫) ১১জনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ২জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

নগরীর জনবহুল কান্দিরপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনার খবরে জেলা পুলিশ প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিসের ইউনিটসহ শত শত মানুষ ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এবং উদ্ধার কাজে অংশ নেন। কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমন জানান, ‘শুক্রবার প্রায় ৪০ জন শ্রমিক সেখানে ঢালাইয়ের কাজ করছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে- নির্মাণাধীন ছাদের সেন্টারিংয়ের সমস্যার কারণে ছাদের একাংশ ভেঙ্গে পড়েছে।’

কুমিল্লা ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক প্রাণ নাথ জানান, ‘নির্মাণ ক্রটির কারণে ছাদ ভেঙ্গে পড়েছে, ঘটনাস্থলে চাপা পড়ে থাকা অন্তত ১৫ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কুমিল্লা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পরে হতাহতদের অবস্থা জানতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়েছি। তাদের চিকিৎসা চলছে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানান, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত শ্রমিক রেজাকে ২০ হাজার টাকা প্রদানসহ আহত শ্রমিকদের চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট পিন্টু বেপারীকে আহবায়ক করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close