সারাদেশ

অসহায়ের পাশে মানবিক ওসি আফজাল হোসেন

এখনই সময়, গৌরনদী বরিশাল: বিধবা মরিয়ম বেগম ৬৫ বছরের অসহায় বৃদ্ধা। ক্ষুধার তাড়নায় কাজের সন্ধানে ‘কঠোর লকডাউনের মধ্যেও’ ঘর থেকে বের হয়েছেন  কর্ম হিসাবে ইট ভেঙে জীবিকা নির্বাহের কাজ করছেন ওই বৃদ্ধা।

বয়সের ভারে ইটভাঙার কাজটিও তেমনভাবে করতে না পারলেও, এ কাজ করে যে টাকা রোজগার করছেন তা দিয়ে কোনোভাবে দিন কাটিয়ে দিচ্ছেন তিনি।

আর তার এমন কষ্টের জীবনের কথা জানতে পেরে খোদ গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আফজাল হোসেন ওই বৃদ্ধার পাশে গিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

এরইমধ্যে তাকে কিছু আর্থিক সহায়তা করেছেন পাশাপাশি অসহায় ওই বৃদ্ধার পাশে সমাজের বিত্তশালীদের এগিয়ে আসারও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে ওই বৃদ্ধার সঙ্গে কথা বলার একটি ছবি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

ওসি এস এম আফজাল হোসেন জানান, ‘কঠোর লকডাউনের’ কার্যক্রমে তার থানা এলাকায় নিয়মিত কাজের তদারকিতে বের হচ্ছেন তিনি। এ সময় গৌরনদী উপজেলার বার্থী এলাকার প্রধান সড়কের পাশে মরিয়ম নামে ওই বৃদ্ধাকে ইট ভাঙতে দেখেন তিনি।

তখন তার কাছে এগিয়ে যান ও ‘লকডাউনের’ মধ্যেও ঘর থেকে বের হয়ে ইটভাঙার কাজ করার কারণ জানতে চান।

এ সময় ওই বৃদ্ধা জানান, তিনি উপজেলার বাউরগাতি গ্রামের বাসিন্দা। তার স্বামী হালান সরদার মারা গেছেন অনেক আগেই। বিয়ে হয়ে যাওয়ায় মেয়ে তার শ্বশুরবাড়িতে থাকছেন বিধায় বাড়িতে তিনি একাই থাকেন। আর তার ভরণপোষণ দেওয়ার মতো কেউ না থাকায় নিজেকেই কাজ করে উপার্জন করে খেতে হয়। এজন্য ইটভাঙার কাজটি করছেন। আর এ কাজ করে দিনে ২০ থেকে ৩০ টাকা উপার্জন হয়, তা দিয়ে কোনোভাবে জীবনধারণ করছেন।

ওসি আফজাল  বলেন, ওই বৃদ্ধা মার কথাগুলো শোনার পর খুব খারাপ লাগে, সঙ্গে সঙ্গে তাকে মাস্কসহ নিজের বেতনের টাকা দিয়ে কিছু আর্থিক সহায়তা করি। যা দিয়ে হয়তো ৮-১০ দিন কাটবে তার। কিন্তু বাকি দিনগুলো! একটু ভালোভাবে কাটাতে সাহায্যের প্রয়োজন ওই বৃদ্ধার।

আরও সংবাদ

Back to top button