সারাদেশ

রংপুরে রোগীদের ভৌতিক ব্যবস্থাপত্র, হাসপাতাল সিলগালা জরিমানা

এখনই সময় :

রংপুরে রোগীদের বিভিন্ন পরীক্ষার রিপোর্টে ছয় মাস আগে মারা যাওয়া চিকিৎসকের নাম ও স্বাক্ষর ব্যবহার করে প্রতারণার অভিযোগে মা-বাবা হাসপাতাল নামের এক বেসরকারি হাসপাতালের মালিককে গ্রেফতার করেছে মহানগর ডিবি পুলিশ। নগরীর ধাপে অবস্থিত অনুমোদন ছাড়াই গড়ে উঠা হাসপাতালটি দীর্ঘদিন ধরে রোগীদের সাথে এ ধরনের প্রতারণা করে আসছিল। শনিবার দুপুরে স্বাস্থ্যসেবা খাতের বিশৃঙ্খলা রোধে জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায়। এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফরিন জাহান ও সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ডা. আঁখি সরকার উপস্থিত ছিলেন।

অভিযানে ধাপ এলাকার মা-বাবা হাসপাতালটিতে চিকিৎসা দেওয়ার নামে প্রতারণা, জালিয়াতি, রোগী হয়রানি, অতিরিক্ত বিল আদায় ও ভুয়া সার্টিফিকেট প্রদানের সত্যতা মেলে। এঘটনায় হাসপাতালটির মালিক খলিলুর রহমান সোহেলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও এক মাসের জেল দেওয়া হয়। একই সাথে অনুমোদন না থাকায় হাসপাতালটি সিলগালা করে দেয় প্রশাসন।

এছাড়া স্পেশালাইজড হাসপাতাল, কমফোর্ট হাসপাতাল ও পপুলার জেনারেল হাসপাতাল নামে তিনটি ক্লিনিকে অভিযান চালানো হয়। এসব হাসপাতাল শুধু অনুমোদনের আবেদন করেই চিকিৎসক, নার্স ছাড়াই দীর্ঘদিন ধরে রোগীদের নামমাত্র সেবা দিয়ে আসছিল। ভ্রাম্যমাণ আদালত এই তিনটি প্রতিষ্ঠানকে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করাসহ চিকিৎসা সেবা বন্ধ করতে মৌখিকভাবে সর্তক করেন।

অভিযান শেষে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) আবু মারুফ হোসেন সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের আওতায় নিবন্ধনহীন হাসপাতাল ও ক্লিনিকের বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর পরই জানা গেলো প্রায় ৭০ শতাংশই নিবন্ধনহীন। স্বাস্থ্যসেবা খাতের বিশৃঙ্খলা রোধে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এদিকে রংপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নগরীতে ২২৯টি বেসরকারি ক্লিনিক, হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের অনুমোদন থাকলেও বর্তমানে নগরীতে রয়েছে প্রায় সাড়ে পাঁচশ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

আরও সংবাদ

Back to top button