সারাদেশ

সেপটিক ট্যাংকে অক্সিজেন না পেয়ে তরুণ-তরুণীর মৃত্যু

এখনই সময় :

নির্মাণাধীন সেপটিক ট্যাংকে পানি পরিষ্কার করতে গিয়ে গৃহকর্তার মেয়ে আসমা খাতুন (১৬) ও দোকান কর্মচারী হাসিবুল ইসলামের (২৪) মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার সীমান্তবর্তী কার্পাসডাঙ্গা বাজারপাড়ার এরশাদুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দর্শনা ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করেন। দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা বাজারের মুদি ব্যবসায়ী এরশাদুল ইসলাম তাঁর দোকানসংলগ্ন বাড়িতে নতুন সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ করছিলেন। গত তিন দিনের বৃষ্টিতে উক্ত সেপটিক ট্যাংকে পানি জমে যায়। আজ বিকেল ৪টার দিকে এরশাদুলের মেয়ে কার্পাসডাঙ্গা গার্লস স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী ট্যাংকে নামে পানি পরিষ্কার করতে। এরপর তার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে তাঁকে তুলতে নামে দোকানের কর্মচারী উপজেলার কালিয়াবকরী গ্রামের মতলেব মণ্ডলের ছেলে হাসিবুল ইসলাম। পরে তারা উঠে না আসায় বা তাদের কোন সাড়া না পেয়ে স্থানীয়রা দর্শনা ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ট্যাংকে বাতাস সরবরাহ করে উভয়ের মরদেহ উদ্ধার করে।

ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা বলছেন, সেপটিক ট্যাংকে বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হয়। ঐ গ্যাসের কারণে অক্সিজেন থাকে না। অক্সিজেন না থাকায় উভয়ে দম বন্ধ হয়ে মারা গেছে।

আরও সংবাদ

Back to top button