আন্তর্জাতিক

ভারতের মাটিতেই চীনা সৈন্যের ঘাঁটি, স্যাটেলাইট ইমেজে স্পষ্ট গতিবিধ!

এখনই সময় :

লাদাখে চীনা সেনার ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেনি বলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাফ জানিয়ে দিলেও স্যাটেলাইট ইমেজ বলছে ভিন্ন কথা। ২৫ জুনের একটি স্যালেটাইট ইমেজে দেখা যাচ্ছে, গালওয়ান উপত্যকার যে অংশকে ১৯৬০-এর লাইন অফ রিজিয়ন হিসেবে দাবি করেছে চীন, সেই অংশ থেকেও আরো ৪২৩ মিটার ভিতরে রয়েছে চীনা সেনার ক্যাম্প। সেখানে চীনা সেনাদের প্রায় ১৬টি তাঁবুও ইমেজে স্পষ্ট লক্ষ্য করা গেছে, সেইসঙ্গে থাকার জন্যে একটি বড় আস্তানা। কমপক্ষে ১৪টি সামরিক গাড়ি। আর এই পুরোটাই ভারতের অংশে।

১৫ জুন পূর্ব লাদাখের সংঘর্ষে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী অভিযোগ তুলেছিলেন, ভারতীয় ভূখণ্ড চীনের কাছে ‘সারেন্ডার’ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রাহুলের ‘#সারেন্ডার মোদী’ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়, আর তাতেই বেজায় চটেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। যদিও মোদী বারবার মুখে ‘উচিত জবাব’ দেওয়ার কথা বললেও কোথাও চীনের নাম পর্যন্ত নিচ্ছেন না তিনি।

নতুন এই স্যাটেলাইট ইমেজ সামনে আসায় অস্বস্তি বাড়ছে কেন্দ্রের। উপগ্রহ চিত্র অনুযায়ী বোঝা যায়, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে ৩৩ দিন ধরে নিজেদের জমি পাকাপোক্ত করেছে চীনা সেনারা। গত শুক্রবার যে চিত্র সামনে আসে, সেই অনুযায়ী প্রায় এক কিলোমিটার ব্যাসার্ধ জুড়ে রয়েছে চীনা শিবিরগুলো৷ তার মধ্যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার এপারে, ভারতীয় ভূখণ্ডের মধ্যে কালো ত্রিপলে ঢাকা গোটা দশেক সেনাছাউনি দেখা গেছে৷ সূত্রের খবর, ওই কালো ছাউনিগুলোই ভারতীয় ভূখণ্ডে থাকা চীনা সেনাদের আস্তানা।

গালওয়ান উপত্যকায় গড়ে ওঠা এই চীনা ঘাঁটি থেকে ভারতের প্যাট্রোলিং পয়েন্ট ১৪-এর দূরত্ব মাত্র ১ কিলোমিটার, ফলে এখানে বসে ভারতীয় সেনার গতিবিধির উপর নজর রাখা সহজ। আবার উত্তর লাদাখে ভারত যে দুরবুক-দৌলত বেগ ওল্ডি হাইওয়ে বানাচ্ছে, তার দূরত্ব এই কালো ছাউনি থেকে বড়জোর ৬ কিলোমিটার। ভারতের এই রাস্তা তৈরি নিয়েই চীনের আপত্তি। ফলে ভারতের অস্বস্তি থেকেই যাচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close