সারাদেশ

মায়ের সামনেই শিশুদের নির্যাতন, নাড়িয়ে দিলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

এখনই সময় :

মোবাইল চুরির কথিত অভিযোগে পীরগঞ্জের পল্লীতে ইউপি সদস্য ও গ্রাম্য মাতব্বরদের মধ্যযুগীয় কায়দায় শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে শনিবার জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আমিনুল হক, উপজেলা চেয়ারম্যান আখতারুল ইসলাম, ইউএনও রেজাউল করিম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবু তাহের মো. আব্দুল্লাহ, ওসি প্রদীপ কুমার রায় শিশু দুটির বাড়িতে যান এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির আওতার আনা হবে বলে আশ্বস্ত করেন।

এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় উপজেলার সেনগাঁও ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য দেওধা গ্রামের জহিরুল ইসলাম গুড ও মোতালেব আলীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নির্যাতনের শিকার এক শিশু মা শরিফা খাতুন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সেনগাঁও ইউনিয়নের দেওধা গ্রামে শরিফা নামে এক গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দেয় একই গ্রামের মোতালেব আলী। ওই গৃহবধূ এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় যড়যন্ত্রমূলকভাবে গত ২২ মে মোবাইল চুরির কথিত অভিযোগে তার নাবালক ছেলে সুমন (১৩) ও ভাতিজা কমিরুলকে (১৬) রশি দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। এসময় শরিফা খাতুন বাধা দিলে তাকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়।

এ ব্যাপারে সুমনের মা শরিফা খাতুন বাদি হয়ে ৫ জুন পীরগঞ্জ থানায় ইউপি সদস্য জহিরুল ইসলাম গুড ও মোতালেব আলীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ওই ইউপি সদস্য ও মোতালেবসহ অভিযুক্তরা চেষ্টা করেন। পরে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে।

আরও সংবাদ

Back to top button