স্পোর্টস

স্যামিকে ‘কালু’ বলার অভিযোগ অস্বীকার ভারতীয় ক্রিকে্টারদের

এখনই সময় :

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের পুলিশের হাতে মৃত্যুর পর সারাবিশ্বে নতুন করে বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন দানা বেঁধে উঠেছে। এর মাঝেই আইপিএলে বর্ণবাদের শিকার হওয়ার ঘটনা ফাঁস করেছেনন ক্যারিবীয় তারকা ড্যারেন স্যামি। আইপিলে খেলার সময় স্যামি বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন! সানরাইজার্স হায়দরাবাদে খেলার সময় অনেকে তাকে ‘কালু’ বলে ডাকত। শুধু স্যামিকেই নয়, গায়ের রং কালো হওয়ায় শ্রীলঙ্কান অল-রাউন্ডার থিসারা পেরেরাকেও ডাকা হতো এই নামে।

তবে স্যামির আইপিএল সতীর্থরা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তবে ইরফান পাঠান দাবি করেছেন, ভারতীয় ক্রিকেট সবসময়ই অল্পবিস্তর বর্ণবাদ থেকে গেছে, ‘আমি তার (স্যামি) সঙ্গে ২০১৪ সালে খেলেছি। আমার মনে হয় এমন কিছু ঘটলে সে সময় আলোচনা হতো। যেহেতু তখন কোনো কথা হয়নি তাই ব্যাপারটা আমার জানা ছিল না। তবে এটা বলতেই হচ্ছে আমাদের লোকজনকে একটু আদব শেখানো উচিৎ। কারণ ঘরোয়া ক্রিকেটে এগুলো (বর্ণবাদ) আমি দেখেছি।’

তিনি বর্ণবাদের ঘটনার উদাহরণ টেনে বলেছেন, ‘আমাদের দক্ষিণের কিছু ক্রিকেটার উত্তরাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলে গেলে এমন ঘটনার মুখোমুখি হয়। আমি কারও নাম বলতে চাই না। এদেশের মানুষ যে বর্ণবাদী সেটাও বলতে চাই না। কেউ হয়তো অতি উৎসাহী হয়ে অথবা মজার কিছু বলতে গিয়ে এমন ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে। মাঝেমধ্যেই তা সীমা ছাড়িয়ে যায়।’

আরেক ক্রিকেটার পার্থিব প্যাটেল বলেছেন, ‘আমি মনে করতে পারছি না এমন কোনো শব্দ শুনেছি।’ ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যান ও অন্ধ্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের বর্তমান পরিচালক বেনুগোপাল রাও একই কথা বলেন, ‘আমি ঠিক নিশ্চিত নয়। এরকম কিছু জানা নেই।’ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন স্যামি আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করলে তারা তদন্ত করতে প্রস্তুত আছেন, ‘স্যামির ওই সময়েই অভিযোগ করা উচিৎ ছিল। সে অবশ্য চাইলে এখনো আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করতে পারে। দরকার হলে বোর্ড তদন্ত করবে।’

আরও সংবাদ

Back to top button