সারাদেশ

করোনা যোদ্ধা ইউএনও করোনায় আক্রান্ত

এখনই সময় :

দেশে করোনা প্রাদূর্ভাবের শুরু থেকে যিনি হাজীগঞ্জের মানুষকে ঘরে থাকতে বারবার অনুরোধ করে যাচ্ছিলেন, যিনি প্রতিদিন অন্তত ২ বার চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজারসহ উপজেলার অন্য সকল এলাকায় পুলিশ বা সসস্ত্র বাহিনী নিয়ে ছুটে বেরিয়েছেন, লগডাউন ভঙ্গ করার কারণে চালিয়েছেন একের পর এক ভ্রাম্যমাণ আদালত, করোনা বিষয়ে হ্যান্ড মাইক দিয়ে দিনের পর দিন সবাই সতর্ক করেছিলেন চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জের ইউএনও বৈশাখী বড়ুয়া। সেই ইউএনও বৈশাখি বড়ুয়ার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছ। এতে ইউওনও’র গাড়ির চালকসহ অফিস সংশ্লিষ্ট ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংশ্লিষ্টরা।

আজ বুধবার জেলার মধ্যে প্রথমধাপে আসা ৩৯ জনের রিপোর্টের মধ্যে ১ জনের করোনা পজেটিভ আসে যে কিনা শনাক্ত হওয়া হাজীগঞ্জে প্রথম করোনা রোগী। একই দিনের ২য় ধাপে ২ জনের রিপোর্টের মধ্যে হাজীগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখি বড়ুয়ার রিপোর্ট পজেটিভ আসে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকি মোকাবেলায় গত ৯ এপ্রিল অনির্দিষ্টকালের জন্য চাঁদপুর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান। এরপর থেকেই লকডাউন কার্যক্রম ও করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণে জনসমাগম ঠেকাতে হাজীগঞ্জে ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করে হাজীগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে স্থান করে নেন বৈশাখি বড়ুয়া।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৭ এপ্রিল ইউএনও’র নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। ২৮ এপ্রিল রাজধানীর শিশু হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট পজেটিভ আসে। বুধবার দুপুরে ওই রিপোর্ট চাঁদপুরের সিভিল সার্জন অফিসে আসে।

হাজীগঞ্জের ইউএনও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান। তিনি বলেন, যেহেতু নির্বাহী কর্মকর্তার করোনা রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। তাই এখন তিনি সিভিল সার্জনের পরামর্শ অনুযায়ী চলবেন।

এদিকে ইউএনও’র করোনা রিপোর্ট পজেটিভ হওয়ায় তাঁর গাড়ির চালক, অফিস সহকারী, পিয়নসহ ১০জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শোয়েব রহমান চিশতী।

আরও সংবাদ

Back to top button