সারাদেশ

করোনায় কেরানীগঞ্জে নতুন আক্রান্ত ছয়জন, মোট ৮৯

এখনই সময় :

উপজেলা ভিত্তিক হিসাবে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যায় কেরানীগঞ্জ সবার ওপরে। কেরানীগঞ্জ উপজেলায় ভয়াবহভাবে বেড়েই চলেছে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আজ রবিবারও নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ছয়জন।

কেরানীগঞ্জে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮৯ জন। রবিবার সন্ধ্যায় এ তথ্য জানান কেরানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মীর মোবারক হোসেন দিগন্ত।

মীর মোবারক হোসেন দিগন্ত জানান, রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নতুন করে আরো ছয়জনের শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে।

এদের মধ্যে জিনজিরা ইউনিয়নের শহীদ নগর এলাকার ৫২ বছর বয়সী এক ব্যাক্তি। জিনজিরা জুমা মসজিদের নিকটে ২৮ বছর বয়সী এক যুবক। এরিস্টফার্মার শ্যামপুর প্লানের কর্মরত এক স্টাফ যিনি জিনজিরার কুশিয়ারবাগ এলাকায় থাকেন। জিনজিরা হাউলিতে গার্লস স্কুলের সঙ্গে ৫৫ বছল বয়সী এক ব্যক্তি। শুভাঢ্যা ইউনিয়নের চুনকুটিয়া চৌরাস্তায় ৪০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। এছাড়া ৪২ বছর বয়সী কেরানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী এসএসিএমও রয়েছে।

স্বাস্থ্য এ কর্মকর্তা আরো বলেন, কেরানীগঞ্জে প্রতিদিনই করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া যাচ্ছে। কেরানীগঞ্জবাসী অসেচতনতার কারণে বাড়ছে করোনা রোগী। তাদের সতর্ক করতে গিয়ে আমাদের চারজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা/ডাক্তার আক্রান্ত হয়েছেন। একজন পুলিশ সদস্যও আক্রান্ত হয়েছে তার পরেও তাদের সাবধান করা যাচ্ছে না। এখনো সবাই সচেতন না হলে অল্প কয়েকদিনে এর পরিমাণ হবে ভয়াবহ।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান সোহেল বলেন, কেরানীগঞ্জে খেটে খাওয়া মানুষের বসবাস বেশি। এই মানুষজনদের মাঝে সচেতনতা খুবি কম। দিন যতই যাচ্ছে কেরানীগঞ্জ মানুষ ধৈর্যচ্যুত হচ্ছে তারা বেশি বাহিরে বের হচ্ছে। অনেকে জীবিকার তাগিদে বের হয় অনেকে অহেতুক বের হয়।

অনেকেই দেখা যায় করোনা উপসর্গ দেখা দিলে লুকাতে চায় এতে তিনি নিজেও বিপদে পড়ছে পরিবারকেও বিপদে ফেলছে। প্রায়ই দেখছি এক পরিবারের একজনের করোনায় আক্রান্ত হলে পরিবারের অন্যদেরও হচ্ছে। তাই করোনার কোনো লক্ষণ দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গেই টেস্ট করুন। করোনা মানেই মৃত্যু নয়।

আগামী দিনগুলো আমাদের জন্য আরো বেশি চ্যালেঞ্জের। সবাই ঘরে থাকুন, সামাজিক দূরুত্ব মেনে চলুন, নিজে নিরাপদ থাকুন, পরিবারকে নিরাপদ রাখুন।

Related Articles

Back to top button
Close