সারাদেশ

রামেক হাসপাতালে জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি ১৪ জন

এখনই সময় :

জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে আরও ভর্তি হয়েছেন ১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের ১ জন সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে, ১ জন মিশন হাসপাতালে এবং ১১ জন রামেক হাসপাতালের পর্যবেক্ষণ ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। শনিবার রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন একজন। বৃহস্পতিবার তাকে বগুড়া হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আর অপর ৩৩ জনের মধ্যে আটজন হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর বাকিরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য, শনিবার (২৫ এপ্রিল) সকাল ৮টা পর্যন্ত রাজশাহী জেলায় ৮ জন, বগুড়া জেলায় ১৫ জন, জয়পুরহাটে ৪ জন, পাবনায় ২ জন, সিরাজগঞ্জে ২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ২ জন ও নওগাঁ জেলায় ১ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। নাটোরে এখনো করোনা রোগী পাওয়া যায়নি। বিভাগে আক্রান্ত একজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে ৩৩ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসকরা প্রতিদিন দুইবার করে তাদের সঙ্গে কথা বলে শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নিচ্ছেন। সবার শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে।

তিনি জানান, শনিবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মধ্যে সাত জেলায় ৫৪৯ জনকে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। রাজশাহীতে ২০ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১৯০ জন, নওগাঁয় ৭৩ জন, জয়পুরহাটে ১৪৬ জন, বগুড়ায় ১১ জন, সিরাজগঞ্জ ৪৪ জন ও পাবনায় ৬৫ জন। এর মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন আটজন। যার মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাতজন ও সিরাজগঞ্জে একজন। বর্তমানে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় ৮ হাজার ১৬৯ জন কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এর মধ্যে রাজশাহীতে ৩৩৪ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক হাজার ৭৪৪ জন, নওগাঁয় ৯৮৬ জন, নাটোরে ১১৭ জন, জয়পুরহাটে ৬৯৯ জন, বগুড়ায় এক হাজার ৬২৪ জন, সিরাজগঞ্জ এক হাজার ৪০৭ জন ও পাবনায় এক হাজার ২৪৬ জন।

আরও সংবাদ

Back to top button