আন্তর্জাতিক

নিউইয়র্কে ভেন্টিলেশনে থাকা ৮০ শতাংশ রোগীই মারা গেছে!

এখনই সময় :

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া নোভেল করোনাভাইরাসের মূল এপিসেন্টার এখন যুক্তরাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যাটা চোখ কপালে তোলার মতো। সারা দেশে এরই মধ্যে করোনার শিকার হয়েছেন ৪ লাখ ৩৫ হাজার ১৬০জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ১৫ হাজার মানুষের। এর মধ্যে শুধু নিউইয়র্কেই মারা গেছেন প্রায় সাড়ে ৬ হাজার মানুষ। প্রথমে অবহেলা করায় এখন পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে দেশটি। দিন দিন অবস্থার আরও অবনতি হচ্ছে। ক্রমাগত বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা।

এবার নিউইয়র্কের ডাক্তাররা দিলেন আরো ভয়ঙ্কর তথ্য। তারা বলছেন, হাসপাতালের আইসিইউতে ভেন্টিলেশনে থাকা রোগীদের ৮০ শতাংশই মৃত্যুবরণ করেছে। এখন তারা ভেন্টিলেটর ছাড়াই চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা করছেন।

ভেন্টিলেটর হল এমন একটি মেশিন যেটা মানুষের ফুসফুসে অক্সিজেন সরবরাহের জন্য ব্যবহৃত হয় এবং সাধারণত শ্বাসকষ্টজনিত রোগে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ রোগীদের ক্ষেত্রে এটা ব্যবহৃত হয়।

অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, ভয়াবহ চাপের সময় মারাত্মক শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা রয়েছে এমন রোগীদের প্রায় ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ মারা যায়। নিউইয়র্ক সিটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে,ভেন্টিলেটর লাগানো হয়েছে এমন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৮০ শতাংশই শেষ পর্যন্ত মারা গেছেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনান্য রাজ্য, চীন এবং ব্রিটেনেও ভেন্টিলেটর লাগানো রোগীদের মধ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যুর হার দেখা গেছে বলে জানিয়েছে এপি।

গুরুতর অসুস্থ রোগীদেরকে ভেন্টিলেটারে রাখাই চূড়ান্ত পদক্ষেপ। বিশেষ করে যাদের শ্বাসযন্ত্রের কার্যকারিতা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় মারা যাওয়ার সর্বোচ্চ সম্ভাবনা রয়েছে। করোনা রোগীদের উচ্চ মৃত্যুর হারের একটি কারণ হতে পারে ভেন্টিলেটর। তবে এটাও ঠিক যে এখনও পর্যন্ত এমন কোনও কার্যকরি ওষুধ নেই যা করোনভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করতে পারে। ফলে গুরুতর রোগীদের বাঁচিয়ে রাখতে ভেন্টিলেটরই একমাত্র ভরসা।

 

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close