সারাদেশ

জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই সিভিল সার্জনের মেয়ের বিয়ে, ৩০০ অতিথি!

এখনই সময় :

পৌরসভার ব্যস্ততম এলাকায় সিভিল সার্জনের সরকারি বাসভবন। করোনাভাইরাস আতঙ্কে জনসমাগম এড়ানোর যে নির্দেশনা সেটি মানা হয়নি খোদ স্বাস্থ্য বিভাগের জেলার এ শীর্ষ কর্মকর্তার বেলায়। তিন শতাধিক অতিথির আপ্যায়ন হয় সিভিল সার্জনের মেয়ের বিয়ে (আকদ্) উপলক্ষে। ওই বাসভবনের পাশেই জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদেরও বাসভবন।

একই বিষয়ে বেশ কড়াকড়ি আরোপ হয় এক অজপাড়া গাঁয়ে। সেখানে এক সাধারন মানুষের মেয়ের বিষয়ে বন্ধ করে বাবার কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করা হয়। বলা হয়, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর যেন মেয়ের বিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া একই উপজেলায় বিয়ে বন্ধ করে দিয়ে এক প্রবাসীকে জরিমানা করে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়।

শুক্রবার দিনের পৃথক এ ঘটনা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার। খোদ জেলার শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তার মেয়ের বিয়ের আয়োজনে জনসমাগম নিয়ে হচ্ছে সমালোচনা। একই সঙ্গে সাধারন মানুষের মেয়ের বিয়ে বন্ধের ব্যবস্থা নেয়া হলেও সিভিল সার্জনের বেলায় কোনো পদক্ষেপ না থাকা নিয়েও সমালোচনা হচ্ছে।

তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন শুক্রবার বিকেলে কালের কণ্ঠকে মোবাইল ফোনে বলেন, এ ধরণের (সিভিল সার্জনের মেয়ের বিয়ে) আয়োজনের কথা শুনেছি। বিষয়টি যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। এ বিষয়ে সরকারের কিছু সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা রয়েছে। সবার জন্যই নির্দেশনা সমান। সে মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার চাপুইর গ্রামের বাসিন্দা মো. মোশারফ হোসেন মোল্লার ছেলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মঈনুল হোসেনের সঙ্গে পারিবারিকভাবে সিভিল সার্জন শাহ আলমের মেয়ে দন্ত চিকিৎসক শাননিন আলম মমোর বিয়ের আয়োজন করা হয় শুক্রবার দুপুরে। বিয়েতে আপ্যায়িত হন চিকিৎসক, বেসরকারি ক্লিনিকের মালিক, ওষুধ কম্পানির প্রতিনিধিসহ অন্তত ৩০০ জন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলম সাংবাদিকদেরকে বলেন, আমার দশ ভাই-বোনের পরিবারের লোকজনকে নিয়ে বিয়ের আয়োজন করেছি। আগে থেকে বিয়ে ঠিক করা ছিলো বলে এতটুকু করতে হয়েছে। প্রশাসন, সুধীসমাজ, সাংবাদিকদের কাউকে এখানে দাওয়াত দেওয়া হয়নি। ব্যক্তি এ বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করায় আমি বিব্রত। বিষয়টি সাংবাদিকদের বিবেকের উপরই ছেড়ে দিলাম।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close